বাংলাদেশ বিদ্যুৎ সরবরাহ ও সংযোগ সম্পর্কিত সকল তথ্য

ওজোপাডিকো বিদ্যুৎ সরবরাহ ও সংযোগ সম্পর্কিত তথ্য

বাংলাদেশ সরকার বিদ্যুৎ সেক্টরের উপর সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার প্রদান করেছে এবং 2021 সালের মধ্যে দেশের সকল নাগরিককে বিদ্যুৎ সুবিধা প্রদানের অঙ্গীকার গ্রহন করেছেন। সরকার এ লক্ষ্যে, কতিপয় সংস্কার কর্মসূচী গ্রহন করেছেন এবং বিদ্যুৎ সেক্টর বিভাজনসহ বিদ্যুৎ উৎপাদন, পরিচালন ও বিতরণ ব্যবস্থায় সিস্টম লস হ্রাসকরণ ও আর্থিক অবস্থা শক্তিশালী করণের লক্ষ্যে 2002 সালে বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানী হিসেবে ওজোপাডিকো গঠন করা হয় । এর মাধ্যমে প্রতিটি শহরে বিদ্যুৎ সংযোগ ব্যবস্থা চালু করা ।

2021 সালের মধ্যে ওজোপাডিকো এলাকার 21 টি জেলা ও 20 টি উপজেলা শহরের সকল জনগণকে বিদ্যুৎ সেবার আওতায় এনেছে |

কুষ্টিয়া ওজোপাডিকো তথ্য​

ভৌগলিক এলাকা N,S রোড, থানাপাড়া, পূর্ব মজমপুর, পশ্চিম মজমপুর, কমলাপুর, উদিবাড়ী, চৌড়হাস, কবুরহাট, খাজানগর ও বল্লভপুর এলাকা সমূহ।ভৌগলিক এলাকা দূরত্ব 25 বর্গ কিলোমিটার। বিতরণ ট্রান্সফরমারের সংখ্যা – 295 টি |

বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি সরবরাহ ও সংযোগ সম্পর্কিত তথ্য

পল্লী অঞ্চলে অবকাঠামো সম্প্রসারণ পল্লী জীবনযাত্রার বিন্যাসে জন্য 1971 সালে আমাদের স্বাধীনতার আগে আমাদের গ্রামীণ মানুষের জন্য খুব কম সুযোগ-সুবিধা তৈরি হয়েছিল। তাই 1972 সালে পল্লী বিদ্যুতায়নের জন্য দায়ী একটি পৃথক সংস্থা গঠনের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার জন্য পল্লী বিদ্যুতায়ন অধিদপ্তর (বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের অধীনে) প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। 1976 সালে NRCA প্রতিটি গ্রামীণ বাড়িতে এবং অন্যান্য গ্রামীণ প্রতিষ্ঠানে বিদ্যুৎ সংযোগ পৌঁছানোর জন্য একটি সম্ভাব্যতা সমীক্ষা চালিয়েছিল। ফলস্বরূপ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড গঠন করা হয়েছিল পল্লী জীবনযাপনের পরিবর্তন আনার জন্য।

পল্লী বিদ্যুৎ সংযোগ পদ্ধতি​

আবাসিক এলাকার পল্লী বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার জন্য আবেদন করার নিয়মাবলী

  1. আবেদন করার সময় ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্র ও সংযোগস্থলের খারিজের স্ক্যান কপি যুক্ত করতে হবে।
  2. সংযোগস্থল হইতে সার্ভিস পোলের দুরত্ব 130 ফুটের মধ্যে হতে হবে।
  3. সঠিক ভাবে মেপে সার্ভিস ড্রপের দুরত্ব প্রদান করুন, সার্ভিস ড্রপের দুরত্ব সঠিক না হলে তারের দৈর্ঘ্য কম বা বেশি হতে পারে, ভুল তথ্য দিলে পরবর্তীতে সংযোগ পেতে বিলম্ব হতে পারে।
  4. মোট লোড ৫০ কিলোওয়াট এর বেশি হলে AHT সংযোগের নিয়মাবলী প্রযোজ্য হবে।
  5. অনলাইনে সার্ভে করার পর প্রয়োজনীয় অর্থ (আবেদন ফি, মেম্বারশীপ ফি ও নিরাপত্তা জামানত) জমাদানসহ সকল নির্দেশনা SMS এর মাধ্যমে জানানো হবে।
  6. আবেদন ফরমের লাল চিহ্নিত ক্ষেত্রগুলো অবশ্যই পূরন করতে হবে, পূরন না করলে আবেদন করতে পারবেন না।
  7. আবেদন পত্রে অবশ্যই গ্রাহকের নিজস্ব মোবাইল নম্বর প্রদান করুন।
  8. আবেদনের পর প্রাপ্ত ট্র্যাকিং আইডি এবং পিন নম্বর সংরক্ষণ করতে হবে, পরবর্তীতে এটি কাজে লাগবে।
  9. সংযোগের অর্থ রকেট এর মাধ্যমে পরিশোধ করা যাবে।